সোমবার, ১৪ জুন, ২০২১

ঘটন-অঘটনের ইউরো: বাকি আর মাত্র ২ দিন

- Advertisement -

বয়সের হিসেবে এশিয়া ও আফ্রিকান নেশনস কাপেরও অনুজ; ফিফা বিশ্বকাপ ও কোপা আমেরিকার অনেক পরে আবির্ভাব উয়েফা ইউরোপিয়ান ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের। কিন্তু জনপ্রিয়তার বিচারে ফিফা বিশ্বকাপের পরই উচ্চারিত হয় ইউরো নামে সর্বাধিক পরিচিত মহাদেশীয় ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের এই লড়াই। কারণ, প্রতিবারই পরতে পরতে ঘটন-অঘটনের সম্ভাবনা নিয়ে হাজির হয় ফুটবল রোমাঞ্চে ঠাসা এই ইউরোপিয়ান প্রতিযোগীতা। এবারও যে তার ব্যতিক্রম হবে না, এমন অনুমান করার জন্য খুব বড় ফুটবলবোদ্ধা হওয়ার প্রয়োজন নেই।

১৯৬০ সালে যাত্রা শুরুর পর থেকে প্রতি চার বছর পর পরই নিয়মিতভবে ফুটবল ফ্যানদের মনের খোরাক মেটাতে বিশুদ্ধ বিনোদন ও রোমাঞ্চ নিয়ে হাজির হয় ইউরো। সর্বশেষ ২০১৬ সালের পর করোনা মহামারির কারণে এক বছর স্থগিত থাকার পর আর তিনদিন বাদেই মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ফুটবলের জমজমাট এই আয়োজন। অবশ্য ঐতিহ্য মেনে প্রতিযোগীতার নাম ইউরো ২০২০ ই রাখা হয়েছে।
ইউরোর ষোড়শ আসরে অংশ নিতে যাচ্ছে ইউরোপের ২৪ টি দল। ১২ জুন বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় ইতালি ও তুরষ্কের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে টুর্নামেন্টের। সর্বমোট ম্যাচ আয়োজিত হবে ৫১টি।

এবারের ইউরোর সবচেয়ে ব্যতিক্রমী দিক হচ্ছে, এবারই প্রথম ইউরোপের ১১ টি দেশে আয়োজিত হচ্ছে প্রতিযোগীতা। যার ফলে প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারী ২৪টি দেশের ৯ টিই পেতে যাচ্ছে হোম ভেন্যুর সুবিধা, যা প্রভাব ফেলতে পারে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফল নির্ধারণেও। যেমন কঠিন গ্রুপে পড়েও রাশিয়া স্বপ্ন দেখতে সক্ষম হচ্ছে এবারের ইউরোতে ভালো কিছু করার। কারণ, গ্রুপপর্বে তিনটি ম্যাচই তারা খেলবে নিজেদের মাটিতে। নিজেদের ইতিহাসের অন্যতম বাজে দল নিয়ে ২০১৮ বিশ্বকাপের মঞ্চে সেমিফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল রাশিয়া। তাদের সেই অভাবনীয় সাফল্যে মাঠের পারফর্মেন্সকে ছোট করে দেখা না গেলেও, হোম গ্রাউন্ডের অবদানও অস্বীকার করার জো কোথায়!

এবারের ইউরোতে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে নর্থ মেসিডোনিয়া ও ফিনল্যান্ড। দলে বড় কোন তারকা না থাকলেও যে কোন সময় যে অঘটন ঘটাতে পারে তার প্রমাণ তারা এরই মধ্যে রেখেছে। এ বছরই এপ্রিলের প্রথম দিনেই বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে তারকাসমৃদ্ধ জার্মানিকে তাদেরই মাটিতে ২-১ গোলে হারিয়ে এপ্রিল ফুল বানানোর তাজা সুখস্মৃতি আছে নর্থ মেসিডোনিয়ার। গোরান পানদেভ, আরিয়ান আদেমির মতো অভিজ্ঞ এবং এগজান আলিওস্কি, এলিফ এলমাস, এনিস বারদি, ডারকো ভেলকোভস্কিদের মতো তরুণ প্রতিভাদের নিয়ে গড়া দলটিকে ডাকা হচ্ছে মেসিডোনিয়ার গোল্ডেন জেনারেশন।

এছাড়া ১৯৯৬ এর পর দীর্ঘ বিরতি শেষে তৃতীয়বারের মতো ইউরোর মূল আসরে এবার জায়গা করে নিয়েছে স্কটল্যান্ড। ’৯৬ এর আগে কেবল ‘৯২ তে ইউরোর টিকিট পেতে সক্ষম হয়েছিল ইংল্যান্ডের প্রতিবেশী দেশটি। ওই দুই আসরে তাদের পরিসংখ্যান ৬ ম্যাচে দুই জয়, এক ড্র ও তিন হার। ইতিহাস তাদের পক্ষে কথা না বললেও রবার্টসন, কিরেন টিয়েরনি, লিয়াম কুপার, স্কট ম্যাক্টোমিনে, জন ম্যাকগিন, আর্মস্ট্রং, ফ্রেজার, বিলি গিলমোর, চে অ্যাডামসদের নিয়ে বেশ ব্যালেন্সড একটি দলই এখনকার স্কটল্যান্ড। ২০২১ এ ইতিহাস বদলে দেয়ার আশা তারা করতেই পারে!

আন্দ্রে শেভচেঙ্কোর অধীনে ইউরো বাছাইপর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে গ্রুপ বি থেকে মূল পর্বে জায়গা করে নিয়েছে ইউক্রেন। সেখানে তাদের গ্রুপসঙ্গী ছিলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালও। স্বাভাবিকভাবেই ইউক্রেনকে এবারের ইউরোর ডার্ক হর্স মানছেন অনেক ফুটবল পণ্ডিতই। নিজেদের তরুণ প্রজন্মের উপর ভর করে ডার্ক হর্স হিসেবে বড় কিছু করার স্বপ্ন দেখছে নেদারল্যান্ডসও।

জিততে একদম ভুলে যাওয়া তুরস্ক ইউরো বাছাইপর্বের আগমূহুর্তে কোচ পাল্টে বদলে ফেলেছে নিজেদের ভাগ্যও। সবাইকে অবাক করে দিয়ে গত ইউরো ও বিশ্বকাপের চমক আইসল্যান্ডকে পেছনে ফেলে ইউরোতে জায়গা করে নিয়েছে তারা। দলের খেলোয়াড়দের সাম্প্রতিক ফর্ম তুরস্ককে প্রেরণা যোগাচ্ছে ২০০৮ এর পুনরাবৃত্তি করার। সেবার সবাইকে চমকে দিয়ে সেমিফাইনাল খেলেছিল তারা।

শিরোপার স্বপ্ন নিয়ে এবার ইউরো শুরু করছে ২০১৮ বিশ্বকাপের মূল আসরে জায়গা না পাওয়া ইতালি। তাদের এই স্বপ্ন জয়ের পেছনে অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করছে কোচ রবার্তো মানচিনির অধীনে টানা দুই বছর ধরে অপরাজিত থাকার অনন্য এক রেকর্ড। ইউরোর সবচেয়ে দুর্ভাগা দল ইংল্যান্ডও তাদের ভাগ্যের সিঁকে ছিড়ে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য মরিয়া। অনন্য রেকর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে ২০১৮ বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশমও। অধিনায়ক ও কোচ হিসেবে বিশ্বকাপ ও ইউরো জয়ের মাইলফলক থেকে আর মাত্র এক ধাপ পেছনে তিনি। তর্কসাপেক্ষে এবারের ইউরোতে সবচেয়ে শক্তিশালী দলও ৯ বছর ধরে দেশমের স্বযত্নে গড়ে ওঠা ফ্রান্সেরই। স্বপ্ন দেখছে জার্মানি, বেলজিয়াম ও স্পেনের মতো পরাশক্তিগুলোও।

এত এত শিরোপা প্রত্যাশীর ভীড়ে এবার ইউরোর শিরোপা ধরে রাখার মিশনে নামছে রোনালদোর পর্তুগাল। গতবার শিরোপা জেতার মৌসুমে কেবল রোনালদো নির্ভর গড়পড়তা মানের এক দল থাকলেও এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত প্রোফাইল বিচারে এবার ইউরোতে অন্যতম দুর্ধষ স্কোয়াড পর্তুগালের। কি রক্ষণভাগ, কি মাঝমাঠ, আর কি আক্রমণ ভাগ দলের সবখানেই বর্তমান সময়ের বাঘা বাঘা সব প্লেয়ার। রুই প্যাট্রিসিও, রুবেন ডিয়াজ, গুয়েরেরো, ক্যানসেলো, ব্রুনো ফার্নান্দেস, জোয়াও ফেলিক্স, ডিয়েগো জোতা, বার্নার্দো সিলভা, আন্দ্রে সিলভা, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো প্রত্যেকেই নিজ নিজ ক্লাবের হয়ে দারুণ এক মৌসুম কাটিয়েছেন। শিরোপা ধরে রাখার মিশনে এর চেয়ে ভালো দল গড়া হয়তো সম্ভবও না। পর্তুগাল এবার ইউরোর শিরোপা ধরে রাখতে পারবে কি না, নাকি শিরোপা উঠবে অন্য কারও হাতে, নাকি তৈরি হতে পারে ২০০৪ এর গ্রিক রূপকথার মতোই আরেকটি রূপকথা! প্রশ্নগুলো তোলা থা সময়ের হাতে। এখন শুধু অপেক্ষা মাঠের খেলা মাঠে গড়ানোর। অপেক্ষা আর মাত্র তিন দিনের। হয়তো ইউরোর ইতিহাসের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর এক ইউরোই অপেক্ষা করছে ফুটবল ভক্তদের জন্য।

বাংলাদেশ প্রেস/মিশু

- Advertisement -

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ খবর

আরও খবর

পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টা : কে এই রাজনৈতিক নেতা?

নাসির উদ্দিন মাহমুদ। ঢাকা বোট ক্লাবের ওয়েবসাইটে যাকে নাসির ইউ মাহমুদ বলে পরিচয় দেয়া হয়েছে। তিনি একজন ব্যবসায়ী ও একটি রাজনৈতিক দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য...

পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টা: সেই নাসির-অমি গ্রেফতার

জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় পাঁচ জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে তারা ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তার বন্ধু অমিসহ...

নাসির ইউ মাহমুদসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে পরীমণির মামলা

ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে আবাসন ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। আজ সোমবার বেলা ১১ টা ৩০ মিনিট নাগাদ...

পরীমণির পাশে জয়া, দিলেন কড়া বার্তা

পরীমণির সঙ্গে ঘটে যাওয়ার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। দিয়েছেন কড়া বার্তা। সোমবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে তিনি এই বার্তা দেন। জয়া লিখেছেন,...

নেতানিয়াহুর বিদায়ঘণ্টা, জেরুজালেমে উল্লাস

আজ রবিবারই ইসরায়েলের দীর্ঘ ১২ বছরের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর প্রধানমন্ত্রীত্বের অবসান ঘটতে যাচ্ছে। পার্লামেন্টে ভোটের মাধ্যমে নতুন সরকার গঠিত হবে। এদিকে এনিয়ে নেতানিয়াহুর বিরোধীরা...