নেতানিয়াহুর বিদায়ঘণ্টা, জেরুজালেমে উল্লাস

গানে নাচে নেতানিয়াহু বিরোধীদের উল্লাস। ছবি সংগৃহীত

আজ রবিবারই ইসরায়েলের দীর্ঘ ১২ বছরের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর প্রধানমন্ত্রীত্বের অবসান ঘটতে যাচ্ছে। পার্লামেন্টে ভোটের মাধ্যমে নতুন সরকার গঠিত হবে। এদিকে এনিয়ে নেতানিয়াহুর বিরোধীরা তাঁর বিদায়ে উল্লাসে আত্মহারা।

জেরুজালেমে নেতানিয়াহুর সরকারি বাসভবনের পাশে বিরোধীরা শনিবার রাত থেকে নেতানিয়াহুর বিদায়ঘণ্টা উদযাপন করছে। এই অঞ্চলে গত বছর থেকে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হয়ে আসছে। সেখানেই এখন একটি কালো ব্যানার লাগানো হয়েছে। তাতে লেখা ‘বাই বাই, বিবি, বাই-বাই’। বিক্ষোভকারীদের কেউ গান গাচ্ছেন, ড্রাম বাজাচ্ছেন কেউবা নাচতেছেন।

রফির রবিনিস্কি নামে এক বিক্ষোভকারী আল জাজিরাকে বলেন, আমাদের জন্য এই রাত অনেক বড়কিছু এবং আগামীকাল দিনটি হবে আরও বেশিকিছু। আমি প্রায় কেঁদে ফেলেছি। আমরা নেতানিয়াহুর বিদায়ের জন্য লড়াই করেছি এবং সেই দিনটি এসেছে।

মধ্য ইসরায়েল থেকে আসা মায়া আরেইলি নামে আরেক বিক্ষোভকারী বলেন, সবাই বলেছিল এতে কাজ হবে না, কিন্তু আগামীকাল ইসরায়েলে নতুন সরকার গঠন হচ্ছে, এবং এটি প্রমাণিত হল যে নাগরিকদের লড়াই কাজে দেয়।

আরও পড়ুন: ‘নতুন যুদ্ধে’ কিম, গালি দিলে, জিন্স পরলে, সিনেমা দেখলে কঠিন শাস্তি

এদিকে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নেতানিয়াহুর ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। তার বিরুদ্ধে ঘুষ, জালিয়াতি এবং বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ইসরায়েলের ইতিহাসে নেতানিয়াহুই হচ্ছেন প্রথম ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী যার ফৌজদারি মামলায় বিচার কাজ চলছে।

ইসরায়েলের ডেমোক্রেসি রিসার্চ সেন্টারের সংবিধান বিষয়ক আইনজীবী আমির ফুক্স শনিবার (১২ জুন) তেল আবিবে বলেন, দুর্নীতি, ঘুষ ও প্রতারণার অভিযোগে আদালতে নেতানিয়াহুর বিচার চলছে। ২০২০ সালের মে মাস থেকে তার বিচার চলছে। যেটা এখনো চলমান। কিন্তু এতদিন প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকার কারণে আইনি দায়মুক্তি থাকায় নেতানিয়াহুকে আটক করা যাচ্ছিল না। কিন্তু ক্ষমতা চলে যাওয়ার পর তার শাস্তি আবশ্যিক হয়ে যাবে।

এদিকে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির একাধিক মামলায় তিনটি চার্জশিট দিয়েছেন ইসরায়েলের পাবলিক প্রসিকিউটর।

আইনজীবী ফুক্স বলেন, ক্ষমতা চলে যাওয়ার পর শিগগিরই নেতানিয়াহু আইনি দায়মুক্তি হারাবেন। তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ রয়েছে তাতে তার সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। তথ্য সূত্র: বিবিসি আল জাজিরা।