সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

বোট ক্লাবে পরীমনির সেদিনের ভিডিওতে কী আছে

অবশেষে নায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার হয়েছেন। এ নিয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন দেশের মানুষ। তেমনি পরীমনিও এখন তার বিচার পাওয়া নিয়ে আশাবাদী হয়ে উঠেছেন।

কিন্তু সেদিন ঢাকা বোট ক্লাবে অভিনেত্রীর সঙ্গে যা ঘটেছিল তার একটি শর্ট ভিডিও ক্লিপ সংবাদমাধ্যমের কাছে এসেছে।

বুধবার (৯ জুন) রাত পৌনে ১১টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। সেখানে থাকা এক ব্যক্তি ১৬ সেকেন্ডের ভিডিওটি মোবাইলে ধারণ করেন।

অন্ধকারাচ্ছন্ন ভিডিওতে প্রথমেই দেখা যায় ঢাকা বোট ক্লাবের ভেতরের চিত্র। এরপর সেখানে দেখা যায় একজন নারী হেঁটে যাচ্ছেন। সেখানে এক ব্যক্তি অস্পষ্ট ইংরেজি ভাষায় কথা বলেছেন।

অপর পাশে মাতাল কণ্ঠে অন্যজন (নাসির উদ্দিন মাহমুদ) অমিকে বলছেন, ‌‌’এই রুমে আনবা না।’

এ সময় ইংরেজিতে ওই ব্যক্তি বলছেন, ‘আই হার্ট ইউ’। এরপরই উত্তেজিত হয়ে অশ্লীল ভাষায় গালি দিয়ে যাচ্ছিলেন ওই ব্যক্তি। তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। যদিও ভিডিওতে চেহারা দেখা যায়নি।

আরও পড়ুন : পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টা : কে এই রাজনৈতিক নেতা?

এদিকে পরীমনি সাভার থানায় দায়ের করা মামলার এজাহারে বলেন, রাত অনুমানিক সাড়ে ১১টায় ঢাকার বনানীর বাসা থেকে তিনি এবং তার কস্টিউম ডিজাইনার জিমি, অমি ও বনিকে নিয়ে উত্তরার উদ্দেশে রওনা হন। পথে অমি বলেন, ঢাকা বোট ক্লাবে তার কিছু কাজ রয়েছে। ফলে অমির কথামতো পরীমনি ক্লাবের সামনে গাড়ি দাঁড় করান। তখন অমি পরীকে অনুরোধ করেন ক্লাবের পরিবেশ সুন্দর, চাইলে তারাও যেতে পারেন।

এ সময় ছোট বোন বনিকে ওয়াশরুমে নেয়ার জন্য ক্লাবে বারের কাছে টয়লেটে যান পরী। টয়লেট হতে বের হতেই নাসির উদ্দিন মাহমুদ তাদের ডেকে বারের ভেতরে বসার অনুরোধ করে কফি খাওয়ার প্রস্তাব করেন। এ সময় অমি ও নাসির মদ খাওয়ার জন্য পরীমনিকে জোর করেন। মদ খেতে না চাইলে নাসির জোর করে পরীর মুখে মদের বোতল প্রবেশ করিয়ে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করেন। এতে করে পরীমনি সামনের দাঁতে আঘাত পান।

পরীমনি আরও জানান, এ সময় নাসির তাকে গালিগালাজ এবং তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্পর্শ করেন। তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। তখন জিমি বাধা দিতে চাইলে তাকেও মারধর করা হয়।

এর আগে ঘটনার বিষয়ে পরীমনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘বুধবার রাত পৌনে ১১টার দিকে তার বন্ধু অমি বাসায় আসেন। বাসা থেকে তাকে উত্তরার বোট ক্লাবে নিয়ে যাওয়া হয়।

বোট ক্লাবে যাওয়ার পর সেখানে সাত-আটজনের একটা গ্রুপ ছিল। তাদের লিডার ছিলেন নাসির উদ্দিন (নাসির ইউ মাহমুদ)। সেখানে পরীমনিকে তিনি বোর্ড ক্লাবের প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিজের পরিচয় দেন। এরপর নাসির পরীমনির সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা করেন। তাকে মরে ফেলারও হুমকি দেন।

সবশেষ সোমবার (১৪ জুন) দুপুরে পরীমনির মামলায় পাঁচজনকে রাজধানীর উত্তরা-১ নম্বর সেক্টরের-১২ নম্বর রোডের বাসা থেকে গ্রেফতার করে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

তারা হলেন- প্রধান আসামি নাসির উদ্দিন মাহমুদ, তুহিন সিদ্দিকী অমি, লিপি আক্তার, সুমি আক্তার ও নাজমা আমিন স্নিগ্ধা।

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ খবর

আরও খবর

মৃত্যুদণ্ড-অঙ্গচ্ছেদের শাস্তি ফেরাচ্ছে তালেবান

তালেবানের কুখ্যাত ধর্মীয় পুলিশের প্রধান মোল্লা নুরুউদ্দিন তোরাবি বলেছেন, আফগানিস্তানে চরম শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড ও অঙ্গচ্ছেদ করার বিষয়টি ফের কার্যকর করা হবে। তিনি এখন...

রাওয়ানের শাহরুখকে মনে করালেন জায়েদ খান

২০১১ সালের ভারতীয় বিজ্ঞান কথাসাহিত্য সুপারহিরো চলচ্চিত্র রাওয়ান মুক্তি পায়। শাহরুখ খান-কারিনা অভিনীত ছবিটির কাহিনি ও পরিচালনা করেছেন অনুভব সিনহা। এই চলচ্চিত্রে শাহরুখ খান দ্বৈত...

আশার বাণী শোনালেন কিম এর বোন

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং আনের প্রভাবশালী বোন বলছেন, দক্ষিণ কোরিয়া যদি কোন উস্কানিমূলক পদক্ষেপ না নেয় তাহলে পিয়ংইয়াং সরকার শান্তি আলোচনা আবার শুরু...

আবার ক্ষমতায় ফিরছেন ট্রুডো

জাস্টিন ট্রুডোর লিবারেল পার্টি অল্প ব্যবধানে কানাডার নির্বাচনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় ফিরেছে, কিন্তু পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে। এ নিয়ে জাস্টিন ট্রুডো তৃতীয়বারের মতো কানাডার...

পাকিস্তানে ক্রিকেট দল পাঠানোর প্রস্তাব নাকচ বাংলাদেশের

একের পর এক বিভিন্ন দেশের সফর বাতিলের পর পাকিস্তানের ক্রিকেট যখন সংকটের মুখে, তখন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আমন্ত্রণ জানিয়ে যোগাযোগ করেছিল বাংলাদেশের সঙ্গে। কিন্তু...